West Bengal

3 weeks ago

ECL Colliary:অবৈধ খনি থেকে দেহ উদ্ধারের পর পরিচয় জানতেই অগ্নিমিত্রার দুই বয়ানে বিভ্রান্তি

Agnimitra Paul
Agnimitra Paul

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ আসানসোলে দুই ব্যক্তির অস্বাভাবিক মৃত্যু নিয়ে চরমে বিভ্রান্তি। সোমবার সকালে রাজেশ তুরী ও বিনোদ ভুঁইঞা নামে ২ জনের দেহ উদ্ধার হয় রানিগঞ্জের (Raniganj) আমরাসোতা এলাকায়। পরিবারের অভিযোগ, প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে খোলা মুখ খনিতে পড়ে গিয়ে তাঁদের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু পুলিশের দাবি, খনি থেকে নয়। তাঁদের বাড়ি থেকেই মৃতদেহ দুটি পাওয়া গিয়েছে। তাই অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু হয়েছে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে মৃতদের বাড়িতে যান আসানসোল দক্ষিণের বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল (Agnimitra Paul)। দুই পরিবারের সঙ্গে কথা বলে একরকম বয়ান দেন তিনি। আবার পুলিশের কাছে নালিশ জানাতে গিয়ে সেখানে ভিন্ন কথা বলেন। তাঁর দুরকম বক্তব্যে বিভ্রান্তি চরমে। এলাকায় উত্তপ্ত পরিস্থিতি।

কুনুস্তরিয়া এলাকার বাঁশড়া খোলামুখ খনিটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল অনেক দিন ধরে। রবিবার রাতে ওই খনি থেকে কয়লা তোলার চেষ্টা করেন কয়েক জন। সেই সময়েই ধস নামে। তাতেই দু’জনের মৃত্যু হয়। মৃতদের নাম বিনোদ ভুঁইয়া এবং রাজেশ তুরি। তাঁদের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। রামপ্রবেশ বার্নোয়াল এবং কারু ভুঁইয়া নামে দু’জন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। সকালে বিষয়টি জানাজানি হতেই খনি কর্তৃপক্ষের দফতরে গিয়ে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়েরা। এর পরেই বিষয়টিতে রাজনীতির রং লাগে। একে একে সেখানে যান সিপিএম ও তৃণমূলের নেতারা। ঘটনাস্থলে যান বিজেপির অগ্নিমিত্রাও। প্রথমে তিনি অভিযোগ করেন, বেকার যুবকদের খনি অঞ্চলে কাজের ব্যবস্থা নেই। পেটের জ্বালায় এই ধরনের বিপজ্জনক কাজ করতে গিয়েই এই ধরনের ঘটনা ঘটছে। কোলিয়ারির আঞ্চলিক দফতরের জেনারেল ম্যানেজারের সঙ্গেও দেখা করতে গিয়েছিলেন অগ্নিমিত্রা। সেখানে ওই আধিকারিকের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়তে দেখা গিয়েছে তাঁকে। অন্য দিকে, কোলিয়ারি কর্তৃপক্ষকে কাঠগড়ায় তুলেছেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী। তিনি অভিযোগ করেন, খনি এলাকায় কেন্দ্রীয় শিল্প নিরাপত্তা বাহিনী (সিআইএসএফ) ও কোলিয়ারির নিজস্ব নজরদারিতে গাফিলত তে থাকার কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে।

খনিতে দু’জনের মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে তোলপাড় শুরু হওয়ার কিছু ক্ষণের মধ্যেই জানা যায়, মৃতদের মধ্যে রাজেশ তুরি স্থানীয় বিজেপি নেতা বলে পরিচিত। তাঁর স্ত্রী রিনা তুরি আমরাসোঁতা পঞ্চায়েতে বিজেপির প্রার্থীও হয়েছিলেন। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরেই অগ্নিমিত্রা দাবি করেন, কয়লা কাটতে গিয়েই বিজেপি নেতার মৃত্যু হয়েছে কি না, তার কোনও প্রমাণ নেই! অগ্নিমিত্রার কথায়, ‘‘দুর্ঘটনাটি কোলিয়ারিতে হয়েছে কি না, তার কোনও প্রমাণ কোলিয়ারি কর্তৃপক্ষের কাছে নেই। ওখানে মোতায়েন থাকা কোলিয়ারির নিরাপত্তাকর্মীরা এ রকম কোনও ঘটনা ঘটতে দেখেননি। পুলিশ দেহ উদ্ধার করেছে তাঁদের বাড়ি থেকে। কোলিয়ারি থেকে নয়।’’ সম্প্রতি আসানসোলের নারায়ণকড়িতেও পরিত্যক্ত কয়লা খনিতে নেমে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছিল। অগ্নিমিত্রার দাবি, ‘‘বাঁশরার ঘটনার সঙ্গে নারায়ণকড়ির ঘটনার কোনও সম্পর্ক নেই।’’

এ নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়ছে না তৃণমূল। নরেন্দ্রনাথ বলেন, ‘‘অগ্নিমিত্রা পাল কেন ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে গেলেন বুঝতে পারছি না! নারায়ণকড়ির ঘটনায় আমরা যেমন পরিবারের পাশে ছিলাম, এই ঘটনাতেও একই ভাবে পরিবারের পাশে থাকব।’’


You might also like!