Travel

1 week ago

Tourism in Kurseong: কার্শিয়াং-এ এবার দারুণ চমক পর্যটকদের জন্য!

Tourism in Kurseong (Symbolic Picture)
Tourism in Kurseong (Symbolic Picture)

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ পর্যটকদের জন্য দারুন খবর। বিশেষ করে যাদের অ্যাডভেঞ্চার পছন্দ তারা এবার কার্শিয়ংয়ে আকাশে উড়ানের স্বাদ নিতে পারবেন। কালিম্পং, দার্জিলিংয়ের পর এবার কার্শিয়ংয়েও পর্যটকদের জন্য শুরু হল প্যারাগ্লাইডিং। এর আগে কার্শিয়ংয়ে অ্যাডভেঞ্চার টুরিজমের কোনও ব্যবস্থা এতদিন ছিল না। এই প্রথম কার্শিয়ংয়ের রোহিনী থেকে প্যারাগ্লাইডিংয়ের আনন্দ নিতে পারবেন পর্যটকরা।জিটিএ পর্যটন বিভাগ এবং কার্শিয়াং এরো ক্লাবের যৌথ প্রচেষ্টায় আয়োজিত প্যারাগ্লাইডিং-এর ট্রায়াল হয়ে গিয়েছে ৷ চিসো পানি (রোহিনী) থেকে রোহিণী লেক গ্রাউন্ড পর্যন্ত প্যারাগ্লাইডিং হবে।

অনীত বলেছেন, ‘পাহাড়ের পর্যটনে নতুন পালক যুক্ত হল। আমরা দু-তিন বছর ধরে কার্শিয়ংয়ে এই পরিষেবা চালু করার চেষ্টা করছিলাম। এতদিন সুরক্ষাজনিত কিছু সমস্যা ছিল। সমস্ত বাধা কাটিয়ে আগামী সপ্তাহ থেকে পর্যটকদের জন্য প্যারাগ্লাইডিংয়ের সুযোগ মিলবে। এর ফলে গোটা পাহাড়েই পর্যটনের আরও উন্নতি হবে।’ কার্শিয়াংয়ে ঘুরতে গেলে প্যারাগ্লাইডিং যারা করতে চান তাঁদের আগে থেকে বুকিং করতে হবে ৷

কার্শিয়ংয়ের প্যারাগ্লাইডিং পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সংস্থার তরফে রিকেশ রাই বলছেন, ‘আপাতত দুটি গ্লাইডারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্যারাগ্লাইডিংয়ের জন্য মাথা পিছু ৪০০০ টাকা করে খরচ দিতে হবে। রোহিণী টোল প্লাজার কাছে অফিস করা হয়েছে। সেখান থেকে প্যারাগ্লাইডিং করানো হবে।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, এই খরচের মধ্যে পর্যটকদের হোটেল থেকে নিয়ে আসা এবং হোটেল পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়া হবে। আগামীতে চাহিদা বুঝে গ্লাইডারের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরেই কালিম্পংয়ের ডেলোয় প্যারাগ্লাইডিং পরিষেবা চালু রয়েছে। ২০১৮ সালে একটি দুর্ঘটনায় এক পর্যটকের মৃত্যু হয়েছিল। তারপর থেকে কয়েক বছর এই পরিষেবা বন্ধ ছিল। পুনরায় কালিম্পংয়ে এই পরিষেবা চালু হয়েছে। একইভাবে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে ২০২০ সালে বন্ধ হওয়া দার্জিলিংয়ের প্যারাগ্লাইডিং পরিষেবা আবার চালু হয়েছে। এবার কার্শিয়ংয়েও এই পরিষেবা চালু করছে জিটিএ। এতে পাহাড়ের কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে বলে অনীত জানিয়েছেন।

এদিকে প্যারাগ্লাইডিং চালু করার পর খুশি পর্যটন ব্যবসায়ীরাও। এই পরিষেবার কারণে আগের তুলনায় পর্যটকদের সংখ্যা বাড়বে বলে তাঁরা আশাবাদী। দার্জিলিং ঘুরতে গেলে আশপাশে কালিম্পঙ, কার্শিয়াং বেড়াতে যান বহু পর্যটক। এবার তাঁদের কাছে একটা বাড়তি আকর্ষণ হতে চলেছে এই প্যারাগ্লাইডিং। সেক্ষেত্রে আগামী দিনে প্যারাগ্লাইডিং পরিষেবা সফল হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।


You might also like!