kolkata 3 months ago (9)

wholesale market to buy flags and tricolor gifts : পতাকা আর তেরঙা উপহার কিনতে ঢল পাইকারী বাজারে

wholesale market to buy flags and tricolor gifts

 

কলকাতা, ১৪ আগস্ট  : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘরে ঘরে পতাকা তোলার আবেদন করেছেন। রাজ্যের বিভিন্ন ডাকঘর থেকে বিক্রি হচ্ছে পতাকা। এ যেন ‘দুয়ারে পতাকা’-র অন্য সংস্করণ। তাই বলে কি ক্যানিং স্ট্রিটের পাইকারি বাজারে পতাকার বাজারে ভাঁটা? মোটেই না! খদ্দের বুঝি উপচে পড়ছে সেখানে।

সোমবার ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্ণ হচ্ছে। প্রায় এক বছর ধরে বিভিন্ন জায়গায় হয়েছে স্বাধীনতা-বিষয়ক নানা প্রদর্শনী, আলোচনা। আগামী ১৫ আগস্টকেও অনেকে স্মরণীয় করে রাখতে চাইছেন। শনিবার বিকেলে ক্যানিং স্ট্রিটে গিয়ে দেখলাম পাইকাররা তাঁদের রাখির সম্ভার সরানোর ফুসরৎ পাননি। সেই বাজারের প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই স্বাধীনতার পসরা ঢেলে সাজাতে হয়েছে।

দেখা হল হাওড়ার রামরাজতলার ব্যবসায়ী অনিল পাঠকের সঙ্গে। পাড়ায় স্টেশনারি দোকান আছে। প্রতি বছরই পাইকারি বাজার থেকে জিনিস কিনে নিয়ে যান। বিক্রি করেন দোকান থেকে। একটা মস্ত ব্যাগ ভর্তি জিনিস কিনেছেন। স্কুটার/বাইকে লাগানোর উপযোগী ধারক-সহ পতাকার প্যাকেট কিনলেন। ডজনপিছু দাম ১৮০ টাকা। ৮ ইঞ্চি দীর্ঘ ও ৬ ইঞ্চি চওড়া ২৫০টি পতাকার প্যাকেট— দাম ৫০ টাকা।

কী কী বিক্রি হচ্ছে? হরেক মাপের, হরেক ধরণের তেরঙা জাতীয় পতাকা। সুতির কাপড়, সিন্থেটিক, কাগজ, প্লাস্টিকে তৈরি। কোনওটি বাড়ির বারান্দা বা ছাদে লাগানোর উপযোগী, কোনওটি সংস্থা অথবা ক্লাবে উত্তোলনের জন্য, কোনওটি রাস্তায় সারিবদ্ধভাবে ঝোলানোর লক্ষ্যে। অশোকনগর থেকে আসা দুটি যুবক পতাকা আর দড়ির সঙ্গে কিনলেন বেশ কিছু ঝালর। পতাকার সারিতেই কিছু ব্যবধানে লাগাবেন। তিনটে ঝালরের একটা সেট ১০০ টাকা। ‘আই লাভ মাই ইণ্ডিয়া’ লেখা কাপড়ের তেরঙা টুপি ৮ টাকা করে। প্লাস্টিকের হ্যাট ১২ টাকা পিস। পাড়ায় পাড়ায় ওগুলো বিক্রি হবে দেড় থেকে দ্বিগুন দামে।

একটি মিশনারি স্কুলের পোষাক পড়া সন্ন্যাসিনী এসেছেন সহকারিনীকে নিয়ে। ছাত্রীদের প্রত্যেকের হাতে পতাকা, বুকে বড় গোল ব্যাজ, মাথায় হেয়ারব্যান্ড দিতে চান। রিস্টব্যান্ড আর হেয়ারব্যান্ডের ডজন যথাক্রমে ৮৪ টাকা ও ৩৬০ টাকা।

৯৬, ওল্ড চিনাবাজার স্ট্রিটে ৩০ বাই ২০ ইঞ্চির সুতির কাপড়ের তেরঙা চাইল ৮০ টাকা। ঝুঁটিবাঁধা এক বৈষ্ণব জানতে চাইলেন, আরও কম দামের আছে না? দোকানি ৫০ টাকা দামের পতাকা এগিয়ে দিয়ে বললেন, “আছে। তবে কোয়ালিটিও আলাদা“!

‘ব্লু বার্ড’ ব্র্যান্ডের তেরঙা বেলুনের ৫০টির প্যাকেটের গায়ে দাম লেখা ৮০ টাকা। চাইছে ৬০ টাকা। দরদাম করলে ৫০ টাকায় মিলতে পারে।

১৬১ ওল্ড চিনাবাজার স্ট্রিটের নোভেলটি স্টোর্স, ১৬৬ ওল্ড চিনাবাজার স্ট্রিটের আরএস ট্রেডার্সে বিক্রি হচ্ছে ‘ইন্ডিয়া’ লেখা ধাতুর আদলে প্লাস্টিকের সুদৃশ্য ছোট্ট ব্যাজ। ডজনপিছু দাম ৪০ টাকা। উপহারের বাক্সে বিক্রি হচ্ছে টেবিলে রাখার উপযোগী ধারক-সহ আড়াআড়ি করে রাখা তেরঙা পতাকা। দাম ৫০ টাকা। এরকমই উপহার সুদৃশ্য ঘড়ি সহ। দাম ৮০ টাকা। চাবির আকর্ষণীয় রিংয়ের ডজন ৩৬০ টাকা। দামটা জানিয়ে বিক্রেতা বললেন, “কোয়ালিটি দেখুন!“ রিংয়ের গোলকের দুদিকেই তেরঙা।

শুরু হয়েছে ১৫ আগস্টের প্রহরগোনা। স্বাধীনতার পসরার এই বাজারের আর্থিক হিসেবের খতিয়ান কে করেন? দোকানিদের আশা, অতিমারির দুটো বছরের খরা কাটিয়ে এবার বিক্রি হবে ভালই।

You might also like!