kolkata

3 weeks ago

ED raid:দুর্নীতির অভিযোগে চাকরি গিয়েছিল,সেই পঞ্চায়েত কর্মীর বাড়িতে হানা দিল ইডি

ED raid
ED raid

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ  শিক্ষক নিয়োগ, পুরসভায় দুর্নীতি পর ১০০ দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগের কিনারা করতে মরিয়া ইডি (ED)। মঙ্গলবার সকাল থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে তেড়েফুঁড়ে তল্লাশিতে নামলেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা। মুর্শিদাবাদের (Murshidabad) বহরমপুর, হুগলির ধনেখালি, কলকাতার সল্টলেকে (Salt Lake) একযোগে হানা দিয়েছেন তদন্তকারী দল। এর মধ্যে এক WBCS অফিসারের বাড়িতেও তল্লাশি চলে বলে ইডি সূত্রে খবর।

বাড়ির সামনে প্রহরায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানেরা। ভিতরে একটি ঘরে প্রাক্তন পঞ্চায়েত কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন ইডির আধিকারিকেরা। অন্য একটি ঘরে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয় পরিবারের বাকি সদস্যদের। জমির দলিল থেকে বাড়ির সবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য, পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে জানতে চাইছেন তদন্তকারীরা। বস্তুত, ১০০ দিনের কাজে ‘দুর্নীতি’র তদন্ত নেমে হয়ত এই প্রথম বার কোনও পঞ্চায়েত কর্মীর (প্রাক্তন) বাড়িতে হানা দিয়েছে ইডি। এ নিয়ে মঙ্গলবার শোরগোল শুরু হয়েছে মুর্শিদাবাদের নওদায়।

মঙ্গলবার সকাল ৯টা নাগাদ বহরমপুর শহরের বিষ্ণুপুর রোড এলাকায় রথীন দে নামে এক জনের বাড়িতে হানা দেয় ইডি। কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে মুড়ে ফেলা হয় গোটা বাড়ি। সূত্রের খবর, নওদা পঞ্চায়েতের কর্মী হিসাবে দীর্ঘ দিন কাজ করেছেন রথীন। নির্মাণ সহায়ক রথীনের বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। স্থানীয় একটি সূত্র বলছে, বছর দুয়েক আগে রথীনের বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ ওঠে। অভিযোগ, ১০০ দিনের কাজের প্রকল্প থেকে প্রায় ৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে নিজের এবং পরিবারের এক সদস্যের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করেছিলেন তিনি। পরে সাসপেন্ডও হন। সেই রথীনের গাড়ির চালক থেকে পরিবারের প্রত্যেক সদস্যকে ইডির পাঁচ আধিকারিক জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

একশো দিনের কাজে দুর্নীতির অভিযোগ অনেক দিন আগেই তুলেছিল বিরোধীরা। এরপর কেন্দ্রের পক্ষ থেকে একশো দিনের কাজের টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়। বস্তুত, ২০১৯, ২০২০, ২০২১ সালে বেলডাঙায় দু’টি, ধনিয়াখালিতে ১টি, এছড়াও অন্যান্য ২ টি থানায় মামলা দায়ের হয়। মোট ৫ টি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ইসিআইআর দায়ের করে ইডি। তারপরই মঙ্গলবার সকাল হতে না হতেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশিতে নামেন গোয়েন্দারা।


You might also like!