kolkata

1 month ago

Sandeshkhali Incident:সন্দেশখালির অভিযোগ নিতে এবার ই-মেইল আইডি সিবিআইয়ের

CBI's e-mail ID to take complaint of Sandeshkhali
CBI's e-mail ID to take complaint of Sandeshkhali

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ সন্দেশখালি নিয়ে জনস্বার্থ ও স্বতঃপ্রণোদিত মামলা, দু’টি ক্ষেত্রেই সিবিআই-কে সিট গঠন করার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। প্রধান বিচারপতি টিএস শিবজ্ঞানম এবং বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিলেন, পাঁচটি মালার পরিপ্রেক্ষিতেই তদন্ত করবে সিবিআই। পাশাপাশি, গ্রামীণ বাসিনাদের অভিযোগ জানানোর জন্য একটি ই-মেইল চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। পদক্ষেপ শুরু CBI-এর।বৃহস্পতিবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই কথা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ৷ পাশাপাশি সিবিআই তাদের এক্স হ্যান্ডেলেও পোস্ট করেছে ৷

বিবৃতিতে সিবিআই জানিয়েছে, "সন্দেশখালিতে জমি দখল, মহিলাদের উপর নির্যাতনের মতো অপরাধের তদন্তে কলকাতা হাইকোর্টে যে নির্দেশ দিয়েছিল, তা মেনে সিবিআই পদক্ষেপ করেছে ৷ 10 এপ্রিল আদালতের ডিভিশন বেঞ্চের দেওয়া নির্দেশ অনুযায়ী সিবিআই একটি ই-মেল 'sandeshkhali@cbi.gov.in' তৈরি করেছে ৷ এটি সম্পূর্ণরূপে সন্দেশখালির জন্য ৷ এখানে সন্দেশখালিতে নারীদের উপর অত্যাচার, জবরদস্তি জমি দখল সংক্রান্ত সব অভিযোগ পাঠানো যাবে ৷" এর সঙ্গে উত্তর 24 পরগনার জেলাশাসককেও সংবাদপত্রে এই বিষয়টি প্রকাশ করার কথা জানিয়েছে সিবিআই ৷

গত বুধবার, 10 এপ্রিল কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টিএস শিবজ্ঞানমের নেতৃত্বে ডিভিশন বেঞ্চ সন্দেশখালিকাণ্ডে সিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেয় ৷ এদিন সিবিআইকে তদন্তভার দেওয়ার পাশাপাশি একগুচ্ছ নির্দেশ দেয় আদালত ৷ তার মধ্যে শুধুমাত্র সন্দেশখালির জন্য সিবিআইকে পোর্টাল এবং ইমেল আইডি তৈরির নির্দেশও দেন প্রধান বিচারপতি ৷ এরপরই দু'টি ই-মেল আইডি ক্রিয়েট করে সিবিআই ৷

গতকাল সিবিআই এর তরফে উত্তর 24 পরগনার জেলাশাসককে সেই ই-মেল আইডি পাঠিয়ে তা সার্কুলেট করতে বলা হয়েছে ৷ যাতে সাধারণ মানুষ ই-মেল মারফত সরাসরি সিবিআই-কে তাদের অভিযোগ জানাতে পারে ৷ সিবিআই সূত্রে খবর, পোর্টাল খোলার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে ৷ তবে এই বিষয়টি কিছুটা সময় সাপেক্ষ ৷ তাই তার আগে ই-মেল আইডি ক্রিয়েট করল সিবিআই।

সিবিআই-এর কাছে কী ধরনের অভিযোগ জমা পড়ছে এবং এর আগে এই ঘটনায় জেলা পুলিশে কী ধরনের অভিযোগ দায়ের হয়েছিল, সেইসব খতিয়ে তারপর মামলা রুজু করা হবে বলে জানা গিয়েছে ৷ আসালত নির্দেশে আরও জানিয়েছে, সন্দেশখালির স্পর্শকাতর এলাকায় 15 দিনের মধ্যে সিসিটিভি এবং এলইডি আলো বসাতে হবে ৷ পাশাপাশি সাক্ষীদের নিরাপত্তা দিতে হবে ৷ যে কোনও পদমর্যাদার যে কোনও ব্যক্তিকে তদন্তের স্বার্থে ডেকে পাঠাতে পারবে সিবিআই ৷ 2 মে এই মামলার পরবর্তী শুনানি ৷ সেদিন আদালতে রিপোর্ট দেবে সিবিআই ৷


You might also like!