kolkata

2 weeks ago

Dev:বিজেপি কেশপুরে নিজেদের লোককে খুন করে তৃণমূলকে ফাঁসানো হতে পারে,আশঙ্কা দেবের

Dev
Dev

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃচাঞ্চল্যকর মন্তব্য করলেন ঘাটালের তৃণমূল প্রার্থী তথা বিদায়ী সাংসদ দেব। তাঁর আশঙ্কা, ১০ থেকে ২০ মে-র মধ্যে কেশপুরে খুন হতে পারেন এক বিজেপি কর্মী। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এবং তাঁদের দলের ষড়যন্ত্রে ওই খুন হতে পারে এবং সেই খুনের দায় চাপানো হতে পারে তৃণমূলের উপরে।

বুধবার সকালে প্রচারের মাঝে সংবাদমাধ্যমের কাছে দেব বলেন, "আমাদের কাছে যা খবর এসেছে এখন পর্যন্ত বিজেপির যিনি প্রার্থী এবং বিজেপি দল কেশপুরে ষড়যন্ত্র করে নিজেদের লোককে মেরে তার দোষ আমাদের লোকের উপর চাপিয়ে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টি করে ভোট করানোর চেষ্টা করবে। ওরা বুঝতে পেরেই গেছে যে জেতার আর কোন রাস্তা নেই।"

নির্দিষ্ট করে সম্ভাব্য তারিখও জানিয়েছেন দেব। ঘাটালের তৃণমূল প্রার্থীর কথায়, "আগামী ১০ থেকে ২০ তারিখের মধ্যে বিজেপি এই ষড়যন্ত্রের প্ল্যান করেছে বলে আমরা জানতে পেরেছি।"

কোন সূত্র থেকে দেব এ ব্যাপারে নিশ্চিত হচ্ছেন তা প্রকাশ করতে চাননি। তবে প্রশাসনের কাছে তাঁর আর্জি, "ভোটের মাঝে কোথাও কোনও অশান্তি হোক, ব্যক্তিগতভাবে আমি তা চাই না। তবে আমি আগে থেকে বলে রাখছি এরকম একটা ঘটনা কেশপুরে ঘটতে চলেছে। তাই প্রশাসনের কাছে এবং নির্বাচন কমিশনের কাছে আগাম প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের আবেদন জানিয়ে রাখলাম।" 

ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে কেশপুর বিধানসভা। একসময় বাংলায় ভোট লুঠের অভিযোগ বোঝাতে বিরোধীরা রাজ্যের যে কটি অঞ্চলের নাম উল্লেখ করত, কেশপুর তারই অন্যতম। পালাবদলের বাংলায় কেশপুরে তৃণমূলের দাপট সর্বজনবিদিত। দেব বোঝাতে চেয়েছেন, সেই কেশপুরে নিজেদের কর্মীকে খুন করে এলাকায় অশান্তির পরিবেশ তৈরি করবে বিজেপি।

এরপরই সরাসরি ঘাটালের বিজেপি প্রার্থী অভিনেতা হিরণের নামোল্লেখ করে দেব বলেন, "হিরণ পাগল হয়ে গেছে। খবরের হেডলাইনে থাকার জন্য যা ইচ্ছে তাই বলে যাচ্ছে। এমনকী ওদের জেলা সভাপতি পর্যন্ত আমাকে নিয়ে একটা কথাও বলেনি। শুধু ওই একটা ছেলে (হিরণ) জেতার জন্য মরিয়া হয়ে যা খুশি বলে যাচ্ছে।" 

এ ব্যাপারে হিরণের কোবও প্রতিক্রিয়া এখনও জানা যায়নি। তবে দেবের আনা বড় অভিযোগ ঘিরে জেলার রাজনৈতিক মহলে তো বটেই প্রশাসনের অন্দরেও শোরগোল তৈরি হয়েছে।


You might also like!