Health

1 week ago

Sugar Food List: ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ এবং ডিনারে কি খাবেন সুগারের রোগীরা? এই ডায়েট চার্ট Follow করলেই হাতের মুঠোয় ডায়াবেটিস!

Diet Plan for Diabetes patients
Diet Plan for Diabetes patients

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ হাই ব্লাড সুগার অর্থাৎ ডায়াবেটিসের রোগীদের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মানতেই হবে খাবার নির্বাচনে। এক্ষত্রে আপনি সবকিছু খেতে পারেন না। একটি ভারসাম্যপূর্ণভাবে খাবার এক্ষেত্রে খুবই জরুরি। আজ এই প্রতিবেদনে আমরা আপনাকে এমন একটি ডায়েট প্ল্যান বলছি যা আপনাকে আপনার রক্তে উচ্চ শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে দারুণ ভাবে সাহায্য করবে।

ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ যার ফলে শরীর ইনসুলিন তৈরি করতে অক্ষম হয়ে যায়। শরীর যখন প্রয়োজনীয় হরমোন ব্যবহার করতে অক্ষম হয় তখনও এই রোগ হতে পারে। সময়মতো নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে ডায়াবেটিস হার্ট ও কিডনির মতো গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের প্রভূত ক্ষতি করতে পারে।

ডায়াবেটিস রোগীদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও বেশি। তবে লাইফস্টাইল ও খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করে এই বিপদ অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। আজ এই প্রতিবেদনে আমরা আপনাকে একটি বিশেষ ডায়েট প্ল্যান শেয়ার করছি যা মেনে সকালের জলখাবার, দুপুরের লাঞ্চ এবং রাতের ডিনার করলে রক্তে উচ্চ শর্করার মাত্রার রোগীদের জন্য তা ভাল ফল দেবে নিঃসন্দেহে।

ডায়াবেটিক খাদ্য পরিকল্পনা:ডায়েট অনেক বিষয়ের উপর নির্ভর করে, যেমন আপনার পছন্দ, স্বাদ, ওষুধ এবং দিনের স্বাভাবিক কার্যক্রম। এক্ষেত্রে ডায়েট পরিকল্পনা করার জন্য সাধারণ পরামর্শ হল সুগার (গ্লুকোজ), কার্বোহাইড্রেট এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার থেকে দূরে থাকা যে কোনও ঋতুতেই।

নিয়মিত আপনার কার্বোহাইড্রেট গ্রহণের পরিমানের উপর নজর রাখুন এবং রক্তে শর্করার মাত্রা স্বাভাবিক রাখতে সকালের ব্রেকফাস্ট, দুপুরের লাঞ্চ এবং রাতের ডিনারের সঠিক পরিমাণ এবং ভারসাম্যের দিকে খেয়াল রাখুন।

সকাল:এক গ্লাস হালকা গরম জলে এক টেবিল চামচ মেথি গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন। এতে শরীর থেকে অবাঞ্ছিত জিনিস দূর হয়।

সকালের ব্রেকফাস্ট:সুগারের রোগীদের ফাইবার এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ সকালের জলখাবার খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। আপনি তালিকায় দেওয়া একাধিক সুস্বাদু এবং স্বাস্থ্যকর ব্রেকফাস্ট বিকল্পগুলি থেকে আপনার প্রিয় ব্রেকফাস্টটি বেছে নিতে পারেন: 

১ কাপ চা/কফি/বাটার মিল্ক/দই১ বাটি পোরিজ এবং একটি শসা দুধ এবং একটি শসা বা টম্যাটো-সহ এক বাটি মুসলি দুধ এবং ১টি শসা বা টম্যাটোর সঙ্গে গম porridge

সবজি ও মুগ ডাল চিল্লা ২-৩টি সবজি দিয়ে তৈরিএক বাটি সবজির পোরিজ উপমা ১ বাটি সবজি-সহ ২টি রুটি (সবুজ শাক যেমন পালং শাক, মুলো শাক, মেথি শাক)

টি মাল্টি গ্রেইন রুটি + ডিমের সাদা অংশ ও প্রচুর সবজিমিষ্টি আলু, মিষ্টি ছাড়া চা/কফি, সিদ্ধ ডিম, বাদাম বা অন্য বীজ, হোল হুইট টোস্ট, ওটমিল, পিনাট বাটার, ১টি কলা, ১টি আপেল/ ১টি কমলা/ ১টি পেয়ারা-সহ মরশুমি ফল।

ব্রেকফাস্ট এবং লাঞ্চের মধ্যে:ডায়াবেটিস রোগীদের সারা দিন ঘন ঘন অল্প অল্প খাবার খাওয়া উচিত। খাবারের মধ্যে খুব বেশি সময়ের ব্যবধান না রাখাই ভাল। সময়মত খাবার খাওয়া এক্ষেত্রে খুবই জরুরি। আপনি নিম্নোক্ত খাবারের বিকল্পগুলি থেকে আপনার পছন্দের জিনিসগুলি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

১ কাপ গ্রিন টি-সহ এক মুঠো ভাজা ছোলা:অথবা একটি ফল (আপেল/গাজর/কমলা/২-৩ টুকরা পেঁপে/পেয়ারা) বা ১ টি গাজর/শসা/মুলো

মধ্যাহ্নভোজন: দুপুরের খাবারের বিকল্প২ টি মাল্টিগ্রেন রুটি/ ১ বাটি পালং শাক বা সর্ষে শাক/ ১ বাটি ডাল/ ১ টি গাজর/ ১টি মুলো/ ১টি টম্যাটো/ ১ বাটি সবজির স্যুপ/ দই ১ বাটি স্যালাড + ২টি রুটি / ১ টি বড় বাটি সবজি + ১ বাটি ডাল / স্প্রাউট / দই / বাটারমিল্ক / ২-৩ টুকরা চিকেন / মাছ

১টি বড় বাটি সবজি দিয়ে খিচুড়ি১ বাটি স্যালাড/ ২ টি শসা/ ২টি টম্যাটো + আধবাটি ব্রাউন রাইস + একটি বড় বাটি সবজি + ডাল / স্প্রাউট / দই / বাটারমিল্ক / ২-৩ পিস্ চিকেন / মাছ ২টি মাল্টিগ্রেন রুটি/ ১ বাটি সর্ষের শাক/ দই/ মুরগির স্যুপ/ ১টি শসা/ ২টি টম্যাটো/ ১ বড় বাটি সবুজ শাকসবজি

বিকেলের টিফিন:বিকাল চারটে বা পাঁচটার মধ্যেই টিফিন করতে ভুলবেন না। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। প্রদত্ত বিকল্পগুলির সঙ্গে আপনি আপনার পছন্দের জিনিসগুলি অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

১টি গোটা ফল (আপেল/কমলা/২-৩ টুকরো পেঁপে/পেয়ারা১ মুঠো ছোলা (সিদ্ধ বা ভাজা) খাখারা বাটার মিল্ক (লবণ বা চিনি ছাড়া) স্যান্ডউইচ (মাখন, পনির এবং মেয়োনিজ এড়িয়ে চলুন) পেঁপে রক্তে ইনসুলিন বাড়াতে কাজ করে, এই সব রোগীদের নিয়মিত খাওয়া উচিত এই ফলটি।

রাতের খাবার:সুগারের রোগীদের অবশ্যই তাদের রাতের খাবারে স্যালাড অন্তর্ভুক্ত করতে হবে, যাতে আপনার পছন্দের যেকোনও সবজি থাকতে পারে। তবে বিটরুট এবং কন্দ থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। রাতের খাবারে নিম্নোক্ত এই জিনিসগুলি খেতে পারেন।

১ বাটি স্যালাড/ ২টি শসা/ ২ টি টম্যাটো/ ২টি রুটি/ ১টি বড় বাটি সবজি + ১ বাটি ডাল/ অঙ্কুরিত ছোলা বা স্প্রাউট/ দই/ বাটার মিল্ক/ ২-৩ টুকরো চিকেন বা মাছ।অথবা ১ বড় বাটি সবজির খিচুড়ি অথবা ১ বাটি স্যালাড /২ টি শসা/ টম্যাটো + ১টি মাল্টিগ্রেন ময়দার তৈরি রুটি বা রোটলা অর্থাৎ বাজরের রোটি + ১ বাটি ডাল/দই/বাটারমিল্ক/২-৩ টুকরো চিকেন বা মাছ।

ঘুমানোর আগে:ঘুমানোর আগে ১ গ্লাস হালকা গরম দুধের সঙ্গে ২টি আখরোট বা ৪টি বাদাম খেতে পারেন।

জরুরী অবস্থায়:এক টুকরো ডার্ক চকলেট বা রোস্টেড বাদাম আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে।

দাবিত্যাগ:এই ডায়েট প্ল্যান সাধারণ শর্তে করা হয়েছে। আপনি এটিকে রেফারেন্স হিসাবে গ্রহণ করতে পারেন। কিন্তু শুধুমাত্র আপনার ডাক্তার বা ডায়েটিশিয়ানের কাছ থেকে আপনার যে নির্দিষ্ট ধরনের খাদ্য গ্রহণ করা উচিত সে সম্পর্কে আপনার পরামর্শ নেওয়া উচিত, কারণ শুধুমাত্র তাদের কাছেই আপনার চিকিৎসা ইতিহাস সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য রয়েছে।

You might also like!