Health

1 month ago

Cashew or Peanut: কাজুবাদাম নাকি চিনাবাদাম? পুষ্টির মার্কসে এগিয়ে কে? জানুন

Cashew & Peanut
Cashew & Peanut

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ বাদাম খেতে ভালোবাসেন না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তাই তো স্কুল, কলেজ, অফিস থেকে ফেরার সময় হোক কিংবা গঙ্গার পাড়ে বসে মনের মানুষের সঙ্গে গল্প গল্প করতে করতে- চিনাবাদাম ভাজা খাওয়ার কাজে আমাদের জুড়ি মেলা ভার। তবে বর্তমানে অনেক সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞ দাবি করছেন যে চিনাবাদাম খেয়ে নাকি তেমন একটা উপকার পাওয়া যায় না। বরং তার বদলে কাজু বাদাম খেলেই নাকি ফিরবে স্বাস্থ্যের হাল।

কাজু বাদামের জুড়ি মেলা ভার​

সুস্বাদু ১০০ গ্রাম কাজু থেকে মোটামুটি ৫৪৫ ক্যালোরি পাওয়া যায়। তাই দেহে এনার্জির ঘাটতি দূর করতে চাইলে আপনি কাজুর শরণাপন্ন হতেই পারেন। শুধু তাই নয়, নিয়মিত এই বাদাম খেলে খারাপ কোলেস্টেরলও কমে বৈকি। এমনকী এই বাদামের গুণে দূরে থাকে হার্টের অসুখ। সেই সঙ্গে ডায়াবিটিস এবং স্ট্রোকের মতো অসুখ প্রতিরোধের কাজেও কাজুর জুড়ি মেলা ভার। তাই সুস্থ থাকতে নিয়মিত কাজু খেতে ভুলবেন না যেন!

কম যায় না চিনাবাদাম​

এতে রয়েছে বোয়োটিন, কপার, নিয়াসিন, ফোলেট, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন ই, থিয়ামিন, ফসফরাস, থেকে শুরু করে একাধিক জরুরি ভিটামিন ও খনিজ। তাই প্রায়দিন চিনাবাদাম খেলে যে দেহে পুষ্টির ঘাটতি অনেকটাই মিটিয়ে ফেলতে পারবেন, তা তো বলাই বাহুল্য! শুধু তাই নয়, এই বাদাম নিয়মিত খেলে সুস্থ থাকবে হার্ট। সেই সঙ্গে সুগারকে বশে রাখার কাজেও এর জুড়ি মেলা ভার। তাই হেসেখেলে জীবন কাটাতে চাইলে ডায়েটে এই বাদাম জুড়ে নিতেই হবে।

চিনাবাদাম না কাজুবাদাম, কোনটা বেশি উপকারী?​

১০০ গ্রাম কাজুতে যেখানে ২৪ গ্রাম প্রোটিন থাকে, সেখানে সমপরিমাণ চিনাবাদামে থাকে ২৬ গ্রাম প্রোটিন। শুধু তাই নয়, চিনাবাদামের তুলনায় কাজুবাদামে ক্ষতিকর স্যাচুরেটেড ফ্যাটও কিছুটা বেশি পরিমাণে রয়েছে। তাই এই দুই বাদামের মধ্যে পুষ্টিগুণের বিচারে সস্তার চিনাবাদাম এগিয়ে।

কতটা খাওয়া উচিত?​

চিনাবাদাম ভেজে না খেয়ে তা কাঁচা অবস্থায় গোটা রাত ভিজিয়ে রাখুন। তারপর পরেরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ৪ থেকে ৫টা কাঁচা বাদাম খেয়ে নিন। আর প্রতিদিন কাজুবাদাম খেতে চাইলে দিনে ২টোর বেশি খাওয়া চলবে না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই দুই ধরনের বাদামে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি রয়েছে। তাই কাজুবাদাম বা চিনাবাদাম বেশি পরিমাণে খেলেই বাড়তে পারে ওজন। এমনকী এই কারণে দেহের অন্যান্য ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও বাড়ে। তাই সুস্থ থাকতে এই নিয়ম মেনে চলার পরামর্শ দিলেন শর্মিষ্ঠা রায় দত্ত।

গ্যাসট্রাইটিস থাকলে সাবধান

গ্যাস, অ্যাসিডিটি বা অন্য কোনও পেটের সমস্যা থাকলে যে কোনও ধরনের বাদাম এড়িয়ে চলাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। নইলে সমস্যা আরও বাড়বে বই কমবে না। তবে আপনারা চাইলে অনায়াসে পিনাট বাটার খেতে পারেন। তাতে পেটের সমস্যা বাড়বে না বললেই চলে।

You might also like!