Game

3 weeks ago

India vs England :বদলা রোহিতদের,অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সমতায় ফিরল ভারত

Indian cricketers cheer after victory
Indian cricketers cheer after victory

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ ইংল্যান্ডের  ‘বাজবল’ নীতির মোক্ষম জবাব দিল টিম ইন্ডিয়া (Team India)। ৩৯৯ রান তাড়া করতে গিয়ে ব্রেন্ডন ম্যাকালামের (Brendon McCullum) ছেলেরা আগ্রাসী মেজাজে শুরু করলেও, ১০৬ রানে জিতে শেষ হাসি হাসলেন রোহিত শর্মা (Rohit Sharma)। যশস্বী জসওয়ালের () ২০৯ রানের পর, প্রথম ইনিংসে জশপ্রীত বুমরাহ  ব্রিটিশদের ব্যাটিংকে একাই বুঝে নিয়েছিলেন। আর এবার দ্বিতীয় ইনিংসে সাহেবদের গর্ব ও দর্প চূর্ণ করে দিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন । নিলেন ৬৬ রানে ৩ উইকেট। ফলে ভারতের প্রথম বোলার হিসেবে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সবচেয়ে উইকেট নেওয়ার নজির গড়লেন অভিজ্ঞ অফ স্পিনার। 

চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করেন জ্যাক ক্রলি ও রেহান আহমেদ। দু’জনে মিলে ভালই খেলছিলেন। এক দিক থেকে যশপ্রীত বুমরা ও অন্য দিকে অক্ষর পটেলকে বল দেন রোহিত শর্মা। দু’জনে চেষ্টা করেও উইকেট তুলতে পারছিলেন না। ইংল্যান্ডকে দিনেক প্রথম ধাক্কা দেন অক্ষর। ২৩ রান করে আউট হন রেহান। অক্ষরকে সঙ্গ দেয় ভাগ্য। রেহানের বলটি নিচু হয়ে যাওয়ায় ব্যাটে লাগাতে পারেননি তিনি।

তৃতীয় দিনের শেষে ইংল্যান্ড জানিয়েছিল, লক্ষ্য বড় হলেও খেলার ধরন বদলাবে না তারা। সেটাই দেখা যায় ইংরেজ ব্যাটারদের খেলায়। ওলি পোপ ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই সুইপ, রিভার্স সুইপ খেলতে শুরু করেন। ফলে রান উঠছিল। কিন্তু সেই সঙ্গে আউট হওয়ার সম্ভাবনাও বাড়ছিল। সেটাই হল। ২১ বলে ২৩ রান করে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে আউট হন পোপ। স্লিপে ভাল ক্যাচ ধরেন অধিনায়ক রোহিত।

জো রুটও প্রথম বলে রিভার্স সুইপ খেলে শুরু করেন। পর পর দুই উইকেট পড়লেও রান তোলার গতি কমায়নি তারা। ১০ বলে ১৬ রান করে অশ্বিনের বলে বড় শট খেলতে গিয়ে আউট হন রুট। ইংল্যান্ডের ইনিংস এক দিকে ধরেছিলেন ক্রলি। অর্ধশতরান করে খেলছিলেন তিনি। ভাল দেখাচ্ছিল ক্রলিকে।

মধ্যাহ্নভোজের বিরতির ঠিক আগে দু’টি বড় ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। প্রথমে ৭৩ রানে ব্যাট করা ক্রলিকে ফেরান কুলদীপ যাদব। আম্পায়ার প্রথমে আউট দেননি। রিভিউ নিয়ে সফল হন রোহিত। তার পরে বুমরার ভিতরে ঢুকে আসা বল বুঝতে না পেরে ২৬ রানের মাথায় এলবিডব্লিউ হন জনি বেয়ারস্টো।

ইংল্যান্ডের আশা টিকে ছিল বেন স্টোকসের উপর। কিন্তু মধ্যাহ্নভোজের বিরতির রান আউট হয়ে যান তিনি। শ্রেয়স আয়ারের থ্রো যে সরাসরি উইকেটে লেগে যাবে তা বুঝতে পারেননি স্টোকস। সেই কারণে কিছুটা ধীরে দৌড় শুরু করেছিলেন। সেটাই কাল হয়। স্টোকস আউট হওয়ার পরে জুটি বেঁধেছিলেন বেন ফোকস ও টম হার্টলি। তাঁরা বেশ ভাল খেলছিলেন। অযথা তাড়াহুড়ো করেননি। ফলে তাঁদের আউট করতে সমস্যা হচ্ছিল বোলারদের। দু’জনের মধ্যে ৫৫ রানের জুটি হয়।

জুটি ভাঙেন বুমরা। ৩৬ রানের মাথায় ফোকসকে বোকা বানিয়ে আউট করেন তিনি। শোয়েব বশিরের উইকেট নেন মুকেশ কুমার। শেষ উইকেটও নেন বুমরা। হার্টলি ৩৬ রানে বোল্ড হওয়ার সঙ্গেই খেলা শেষ হয়ে যায়। ম্যাচ হারে ইংল্যান্ড।


You might also like!