Country

3 days ago

Sikkim Weather : প্রবল বৃষ্টিতে বড়সড় দুর্যোগ! ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে ধস, অবরুদ্ধ সিকিমগামী রাস্তা

Heavy rain disaster! Collapse on National Highway No. 10, road to Sikkim blocked
Heavy rain disaster! Collapse on National Highway No. 10, road to Sikkim blocked

 

দুরন্ত বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ দুর্যোগের কবলে সিকিম। এবার ধস নামল ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে। এর জেরে সিকিমগামী রাস্তা বন্ধ। বিপাকে পড়েছেন বহু পর্যটক। জানা গিয়েছে, সোমবার রাত থেকে সিকিমে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে শুরু করে। প্রবল বৃষ্টিতে ধস নামে সিংটামের কাছে ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে। অবরুদ্ধ হয়ে যায় সিকিম যাওয়ার রাস্তা।

মঙ্গলবার সকাল থেকে সিকিম প্রশাসন ধস সরিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে। তবে আবহাওয়ার প্রতিকূল দশা সেই কাজে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। একটানা বৃষ্টি ও ধস চিন্তায় ফেলেছে সিকিম প্রশাসনকে। জানা গিয়েছে সিংটাম, গ্যাংটকগামী আরও বেশ কয়েক জায়গায় ধস নেমেছে রাস্তায়। সিংটামের কাছে জাতীয় সড়কে ধস নেমে দু'ধারে গাড়ির লম্বা লাইন পড়ে গিয়েছে। স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে যান চলাচল। তবে ধীরে ধীরে একমুখী যান চলাচল শুরু করানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও খবর পাওয়া গিয়েছে প্রশাসন সূত্রে।

অন্যদিকে ইয়াঙ্গনে প্রবল বৃষ্টি অব্যাহত। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেখানকার ট্যুরিজম সেন্টারটি। এ ছাড়াও সিকিমের রানিখোলা সহ বেশকিছু নদীতে জলস্তর অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। কিছু জায়গায় জলস্তর বিপদসীমা ছুঁয়েছে বলেও খবর।

দু'দিন টানা বৃষ্টিতে মূলত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে সিংটামগামী শান্তিনগর এলাকার রাস্তা। ধস নেমে সম্পূর্ণ অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে সেটি। সিংটাম থেকে ৩২ নম্বর জাতীয়সড়কগামী রাস্তাও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি গ্যাংটকের পানিহাউস এলাকাতেও ধস নেমেছে। শিবমন্দিরের কাছে সম্পূর্ণ ধসে গিয়েছে রাস্তা।

এদিকে, আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ১০১.৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়। নাগাড়ে চলা বৃষ্টিতে দক্ষিণ সিকিমে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে এলাকার আটটি বাড়ি। ধসে চাপা পড়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। ইয়াঙ্গনের মাজুয়া গ্রাম সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত। নামচির জেলাশাসক অন্নুপূর্ণা অ্যালি জানিয়েছেন, মেঘ ভাঙা বৃষ্টির জেরে মাজুয়া গ্রামে ভারী দুর্যোগ, বন্যা পরিস্থিতি। গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রাখা হচ্ছে। উদ্ধারকাজ শুরু করা হয়েছে। ইয়াঙ্গনের হেলিপ্যাডকে আশ্রয়স্থল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই মাজুয়া গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের এই হেলিপ্যাডে সরিয়ে আনা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে ৫০টি পরিবার। জলের নীচে চলে গিয়েছে ইয়াঙ্গনের রাস্তা। সিসিনি এলাকার নামফোক পর্যন্ত রাস্তা জলে ভেসে গিয়েছে বলে খবর। এখনও এলাকার একাধিক বাসিন্দা নিখোঁজ।

You might also like!