Country

1 week ago

Hemant Soren:হেমন্ত সোরেনের জামিনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ ইডি

Hemant Soren
Hemant Soren

 

নয়াদিল্লি, ৯ জুলাই : জমি সংক্রান্ত আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ঝাড়খণ্ড জনমুক্তি মোর্চা নেতা হেমন্ত সোরেনের জামিন মঞ্জুর করেছে ঝাড়খণ্ড হাইকোর্ট ৷ এবার সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) ৷ গত 28 জুন জামিন হয় সোরেনের ৷ 4 জুলাই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি ৷

হাইকোর্টে এই মামলার শুনানি চলাকালীন ইডি’র তরফে উপস্থিত আইনজীবী জানান, যদি সোরেন জামিনে মুক্তি পান, তাহলে তিনি একই ধরনের অপরাধ করতে পারেন ৷ থানায় ইডি অফিসারদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে পারেন । এই বক্তব্যের উত্তরে হাইকোর্টের তরফে বলা হয়, ‘‘ইডি আধিকারিকদের আবেদনপত্রে এই বিষয়ে উল্লেখ থাকলেও, আদালত মনে করে অভিযুক্তের পুনরায় একই ধরনের অপরাধ করার কোনও প্রবণতা নেই ৷’’ সেইসঙ্গে আদালতের একক বেঞ্চ আরও জানায়, সমস্ত তথ্য-প্রমাণ থেকে প্রমাণিত অভিযুক্ত ব্যক্তি 2022 সালের আর্থিক তছরুপ প্রতিরোধ আইনের 45এ ধারার অন্তর্গত সমস্ত শর্ত মেনে চলেছেন ৷ তাই তিনি দোষী নন ৷31 জানুয়ারি ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম) নেতা তথা রাজ্য়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে গ্রেফতার করেছিল ইডি ৷ 5 মাস জেলে থাকার পর 28 জুন তাঁর জামিন মঞ্জুর করে ঝাড়খণ্ড হাইকোর্ট ৷ মামলার শুনানি চলাকালীন ইডি আদালতে হেমন্তের জামিনের বিরোধিতা করে ৷ হাইকোর্টের কাছে 48 ঘণ্টা সময় চায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ৷ তবে আদালত তা খারিজ করে দেয় ৷

ইডি-র তরফে দাবি করা হয়, তদন্তের সময় সোরেনের মিডিয়া পরামর্শদাতা অভিষেক প্রসাদ স্বীকার করেছেন জেএমএম নেতা তাঁকে জমির মালিকানার বিবরণ পরিবর্তন করার জন্য সরকারী নথিতে হেরফের করার নির্দেশ দিয়েছেন । কেন্দ্রীয় সংস্থার তরফে আরও দাবি করা হয়, জমি দখলের সময় অভিযোগ দায়ের করার চেষ্টা করেন আসল মালিক রাজ কুমার পাহান ৷ কিন্তু তাঁকে করতে দেওয়া হয়নি ৷

প্রসঙ্গত, সোমবার ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় আস্থা ভোটে জয় পেয়েছে হেমন্ত সোরেনের সরকার ৷ ইডি’র হাতে গ্রেফতার হওয়ার আগে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন সোরেন ৷ জামিনে ছাড়া পাওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি ৷ সোমবার এই নিয়ে সেই রাজ্য়ের বিধানসভার বিশেষ অধিবেশন বসে ৷ সেখানে আস্থা প্রস্তাব পেশ করেন হেমন্ত ৷ তার পর ভোটাভুটি হয় ৷ সেই ভোটাভুটিতে প্রস্তাবের পক্ষে মোট 45টি ভোট পড়ে, বিরোধীতায় একটি ভোটও পড়েনি । ঝাড়খণ্ডের চলতি বিধানসভায় এই নিয়ে চারবার আস্থা প্রস্তাব পেশ হল ৷


You might also like!